শরীরে একাধিক আঘাত, খুন করা হয়েছে সুশান্তকে: দাবি চিকিৎসকের

১৬৪
সুশান্ত

সুশান্ত সিং রাজপুত আত্মহত্যা করেননি বরং তাকে খুন করা হয়েছে- সম্প্রতি এমনই দাবি করেছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে অর্ডিন্যান্স হাসপাতালের চিকিৎসক মীনাক্ষি মিশ্রা। তিনি আরও জানান, ১৪ জুন নয়, ১৩ জুন রাতে!

এক ভার্চুয়াল ময়নাতদন্তে অর্ডিন্যান্স হাসপাতালের ডার্মাটোলজিস্ট ড. মিশ্রার বিস্ফোরক দাবি, 'যেদিন অভিনেতার দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়, তার এক দিন আগেই অভিনেতাকে খুন করা হয়েছে!'

তিনি এও বলেন, সকালে অভিনেতা ফলের রস খেয়েছেন, এসব পুরো বানানো গল্প, কারণ সুশান্তক ১৩ জুনই খুন করা হয়েছে।

তার দাবির স্বপক্ষে তিনি বেশ কিছু প্রমাণও তুলে ধরেছেন! যেমন, যখন কেউ আত্মহত্যা করেন, চোখ বাইরে ঠেলে বেরিয়ে আসে, মুখের ভিতর থেকে জিভ বাইরের দিকে বেরিয়ে আসে। কিন্তু সুশান্তের ক্ষেত্রে এমনটা ঘটেনি।

চিকিৎসক মীনাক্ষি মিশ্রা জানিয়েছেন, অভিনেতার বাঁ চোখের উপরে এবং চোখের নীচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে, ঠোঁটেও রয়েছে আঘাতের নিশানা। গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার সময় এই আঘাতগুলো কীভাবে এল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ড. মিশ্রা।

মীনাক্ষি মিশ্রার দাবি, সুশান্তের গলায় যে দাগ দেখা গিয়েছে, সাধারণত গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার ক্ষেত্রে তেমন দাগ দেখা যায় না। পাশাপাশি, অভিনেতার হাঁটুতে গভীর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। চিকিৎসক মনে করছেন, অভিনেতার হাঁটু হয়তো ভেঙে গিয়েও থাকতে পারে।

এই চিকিৎসক আরও দাবি করেন, 'আমি চোখ বন্ধ করে বলতে পারি, এটা আত্মহত্যা নয়, খুন! শরীর ফ্যাকাশে হয়ে গিয়েছে, যা বোঝাচ্ছে মৃত্যু হয়েছে দেহ উদ্ধারের ১৫-১৮ ঘণ্টা আগে।'

মীনাক্ষি মিশ্রা মুম্বাই পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন! তিনি জানান, 'আত্মহত্যার ক্ষেত্রে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরাই ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করতে পারেন। এক্ষেত্রে তা হয়নি। কাজেই, মুম্বাই পুলিশ যে প্রমাণ নষ্টের চেষ্টা করেনি, সেটা কে হলফ করে বলতে পারে?'

 

অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
https://bangladeshdawn.com/author/202006131592032